ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি ৫ বছরে তিন গুণ বৃদ্ধি

Author:

Published:

Updated:

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি ৫ বছরে তিন গুণ বৃদ্ধি DU admission test application has increased

Get Study Online – Google News

Do you want to get our regular post instant? So you can follow our Google News update from here.

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি ৫ বছরে তিন গুণ বৃদ্ধি

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি ৫ বছরে তিন গুণ বৃদ্ধি DU admission test application has increased

২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রোগ্রামের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি)। গত বছরের তুলনায় এবার আবেদন ফি ৫০ টাকা বাড়িয়ে ১০৫০ টাকা করা হয়েছে। ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের আবেদনের ফি ছিল ১০০০ টাকা।

গত ৫ বছরে আবেদনের ফি বেড়েছে তিন গুণ। ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি আবেদন ফি ছিল ৩৫০ টাকা। তারপর ধাপে ধাপে আবেদনের ফি বাড়ে। গত পাঁচ বছরে আবেদনের ফি উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধির জন্য পরীক্ষার উপকরণের উচ্চমূল্য, আটটি বিভাগে ভর্তি পরীক্ষা, টেলিটক কোম্পানির ওপর ভ্যাট এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে (ইউজিসি) দায়ী করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

জানা যায়, ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি ছিল ৩৫০ টাকা। ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ১০০ টাকা বেড়ে ৪৫০ টাকা হয়েছে। এরপর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ২০০ টাকা বাড়িয়ে ৬৫০ টাকা করা হয়। পরে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ফি আরও ৩৫০ টাকা বাড়িয়ে ১ হাজার টাকা করা হয়। পরবর্তী শিক্ষাবর্ষ ২০২২-২৩ এও আবেদনের ফি ছিল ১০০০ টাকা। এরপর ফি আরো ৫০ টাকা বাড়িয়ে ১ হাজার ৫০ টাকা করা হয়েছে। বিগত পাঁচ বছরের ব্যবধানে ৭০০ টাকা বেড়েছে অর্থাৎ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির আবেদন ফি বেড়েছে তিন গুণ ।

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা | ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি

২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের জন্য আবেদনের ফি ১০০ টাকা বাড়ানোর কারণ, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলেছে, পরিষেবার একটি লিখিত অংশ থাকায় প্রথমবারের মতো ফি ‘সামান্য’ বাড়ানো হয়েছে। বিভাগীয় শহরে পরীক্ষা পরিচালনার অতিরিক্ত খরচের কারণে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে 200 টাকা বৃদ্ধি করা হয় । কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে যে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ৩৫০ টাকা ফি বাড়ানোর কারণ হল যে এটি আগের বছরের ফি সামঞ্জস্য না করার কারণে বাড়ানো হচ্ছে।

৫০ টাকা বৃদ্ধির বিষয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, ২০১০ সাল থেকে আমাদের অনলাইন ফি ৩০ টাকা ছিল, যা এখন বেড়েছে। সরকার একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে যে আবেদন ফি এর ১০ শতাংশ অনলাইন ফি দিতে হবে। সে অনুযায়ী ১০০ টাকা হলেও আমরা শিক্ষার্থীদের কথা ভেবে আগের জিনিস ব্যবহার করছি এবং মোট ৫০ টাকা কমিয়ে ১ হাজার ৫০ টাকা করেছি।

২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে আবেদন ফি ছিল ৩৫০ টাকা, ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে এটি ছিল ৪৫০ টাকা, ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে এটি ছিল ৬৫০ টাকা, ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে এটি ছিল ১০০০ টাকা, ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে এটি ছিল 1000 টাকা এবং সর্বশেষে ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে এটি বাড়িয়ে ১০৫০ টাকা করা হয়।

এ বিষয়ে অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমান (বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি অফিসের প্রধান) বলেন, ২০১৮-১৯ সালে যখন আবেদন ফি ছিল ৩৫০ টাকা, তখন ১০ শতাংশ টেলিটককে দিতে হয়েছে। পরবর্তীতে ওই টাকা দিয়ে পরীক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী জোগাড় করা সম্ভব হয়নি। পরে আবার ১০০ টাকা বৃদ্ধি করা হয়েছে অর্থাৎ ৪৫০ টাকা হলো । এটি প্রাথমিকভাবে পরীক্ষার আইটেমগুলির জন্য তৈরি করা হয়েছিল। কারণ ওই টাকা দিয়ে সব কেনা সম্ভব ছিল না। এরপর বিভাগীয় শহরে পুনঃপরীক্ষা করলে খরচ বেড়ে যায়। পরে আমরা ফি বাড়িয়ে ৬৫০ টাকা করি। এই ৬৫০ টাকা দিয়ে আমরা আটটি বিভাগে পরীক্ষা শেষ করা যেত।

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি

তিনি আরও বলেন, পরে ইউজিসি আমাদের বলেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়ের ৪০ শতাংশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি থেকে দেখাতে হবে। আমরা এ নিয়ে অনেক প্রতিবাদ করেছি কিন্তু তারা রাজি হয়নি। পরে তাদের চাপে আবেদন ফি একযোগে ৬৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১০০০ টাকা করা হয়। প্রথমে আমরা পরীক্ষার জন্য যা প্রয়োজন তা নিয়েছিলাম। যদি UGC এখনও বলে যে কোনও আয় দেখানোর প্রয়োজন নেই, আমরা ৬০০ টাকা বা ৬৫০ টাকা আবেদন ফি নির্ধারণ করে আবার পরীক্ষা শেষ করতে পারি।

৫০ টাকা বৃদ্ধির বিষয়ে তিনি বলেন, ২০১০ সাল থেকে আমাদের অনলাইন ফি ছিল ৩০ টাকা, যা এখন বেড়েছে। অনলাইনে আবেদনের জন্য দশ শতাংশ ফি দিতে হবে বলে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে সরকার। সে অনুযায়ী ১০০ টাকা হলেও আমরা শিক্ষার্থীদের কথা ভেবে আগের জিনিস ব্যবহার করছি এবং মোট ৫০ টাকা কমিয়ে ১ হাজার ৫০ টাকা করেছি। এছাড়া সব কিছুর দাম বেড়েছে। আগে যেখানে সার্ভার কিনতে ৫ লাখ টাকা দিতাম, এখন ১০ থেকে ১২ লাখ টাকা লাগে। এসব বিবেচনায় এবং ইউজিসি থেকে ৪০ শতাংশ আয় দেখানোর চাপের পরিপ্রেক্ষিতে প্রকৃতপক্ষে আবেদন ফি বাড়ানো হয়েছে।

অজুর ফরজ কয়টি ও কি কি ? অজু ভঙ্গের কারণ ? স্বপ্নে অজু করতে দেখলে কি হয় ? অজু ও গোসলের ফরজ ?

Paragraph Writing on Covid 19 – Covid 19 paragraph in english 200 words

The importance of learning english paragraph for All Classes 2024

ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা | ঢাবির ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফি

 



Related Posts

About the author

Leave a Reply

Back to top arrow
কনফিউজিং সাধারণ জ্ঞান | General Knowledge for BCS, Admission & Jobs Exam Daily Spoken English #1 | English Spoken Tips চল্লিশ হাজার হাদীস থেকে চারটি কথা | Islamic Post A Railway Station Paragraph For SSC & HSC | Paragraph মৃত্যুর পরেও নেকি পাওয়ার ৬ টি উপায় | Islamic Post
কনফিউজিং সাধারণ জ্ঞান | General Knowledge for BCS, Admission & Jobs Exam Daily Spoken English #1 | English Spoken Tips চল্লিশ হাজার হাদীস থেকে চারটি কথা | Islamic Post A Railway Station Paragraph For SSC & HSC | Paragraph মৃত্যুর পরেও নেকি পাওয়ার ৬ টি উপায় | Islamic Post
কনফিউজিং সাধারণ জ্ঞান | General Knowledge for BCS, Admission & Jobs Exam Daily Spoken English #1 | English Spoken Tips চল্লিশ হাজার হাদীস থেকে চারটি কথা | Islamic Post A Railway Station Paragraph For SSC & HSC | Paragraph মৃত্যুর পরেও নেকি পাওয়ার ৬ টি উপায় | Islamic Post
Enable Notifications OK No thanks